Home » জাতীয় » এখানেই মরে যাব সমস্যা নাই, পরিবারের কাছে গিয়ে কী করব আমরা’

এখানেই মরে যাব সমস্যা নাই, পরিবারের কাছে গিয়ে কী করব আমরা’

‘আসছি ১ তারিখে। আজকে আট দিন হল। প্রেসক্লাবের মাঠে খোলা আকাশের নিচেই আছি। গত রাতে খুব শীত গেছে, সবচেয়ে কষ্ট হয়েছে গতকাল। বাতাস হয়েছিল তো, তাই কষ্টটা বেশি পেয়েছি। কালকের মতো কষ্ট আর হয়নি’, বলছিলেন নিবন্ধন পাওয়া স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা জাতীয়করণের দাবিতে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আন্দোলনকারীর একজন আবু বক্কর সিদ্দিক। তিনি নেত্রকোনা জেলা মদনের চানগাঁ শাহপুর স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসার শিক্ষক।


৮ জানুয়ারি সোমবার মাদ্রাসার এ শিক্ষক কাঁদতে কাঁদতে আরো বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমাদের একটাই চাওয়া, তিনি যেন আমাদের দাবি মেনে নেন। তা না হলে আমরা স্থান ত্যাগ করব না। এখানেই মরে যাব, সমস্যা নাই। পরিবারের কাছে গিয়ে কী করব আমরা?’

ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির ডাকে ১ জানুয়ারি থেকে শিক্ষকরা এই আন্দোলন করছেন। সমিতির মহাসচিব কাজী মোখলেছুর রহমান জানান, তাদের দাবি মেনে নেয়া না হলে ৯ জানুয়ারি মঙ্গলবার বেলা ১১টা থেকে আমরণ অনশন করবেন তারা।

মোখলেছুর রহমান জানান, আগে প্রায় ১৮ হাজার ইবতেদায়ি মাদ্রাসা ছিল, বর্তমানে সেই সংখ্যা কমে ১০ হাজারের কিছু বেশি। প্রতিটি মাদ্রাসায় পাঁচজন করে শিক্ষক ধরলেও ৫০ হাজার শিক্ষক রয়েছেন। এর মধ্যে ১ হাজার ৫১৯টি মাদ্রাসার ৬ হাজার ৬৭৬ শিক্ষক বেতন পান। প্রধান শিক্ষক ২৫শত টাকা, সহকারী শিক্ষক ২৩শত টাকা করে বেতন পান। বাকি শিক্ষকরা কোনো বেতন পান না।

ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির সভাপতি কাজাী রুহুল আমীন চৌধুরী বলেন, ‘৩৪ বছর হলো আমরা বেতন-ভাতা পাই না, আমাদের জাতীয়করণ করা হোক।’

আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, ‘প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় আমাদের শতভাগ পাস আছে। সরকার ছাত্রছাত্রীদের উপবৃত্তি দেয়, স্কুল টিফিন দেয়। কিন্তু আমরা যারা ছাত্রছাত্রীদের পড়াই সরকার তাদের বেতন-ভাতা দিচ্ছে না। সেজন্যই আমরা রাস্তায় বসেছি।’


স্ত্রী, ছেলেমেয়েদের ঠিকমতো ভরণপোষণ দিতে পারেন না উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমি নিজেকে গর্বিত মনে করি, ৪০-৫০টা ছেলেকে শিক্ষাদান করি। তারপরও সমাজে আমরা অবহেলিত। আমাদের সাথেই প্রাইমারি স্কুল আছে, তারা বেতন পায়, আমরা পাই না; বুঝুন আমাদের কেমন লাগে।’

প্রিয়

মন্তব্য

আপনার ইমেইল গোপন থাকবে - আপনার নাম এবং ইমেইল দিয়ে মন্তব্য করুন, মন্তব্যের জন্য ওয়েবসাইট আবশ্যক নয়

*

Open

Close