Home » খেলা » ক্যারিয়ারে কখনই নো বল করেননি যেসব কিংবদন্তি বোলার

ক্যারিয়ারে কখনই নো বল করেননি যেসব কিংবদন্তি বোলার

চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ভারতের দেওয়া একটা নো বলই পাকিস্তানের শিরোপা জয়ে বড় ভুমিকা রেখেছে। পাকিস্তান ওপেনার ফখর জামানের বিপক্ষে যশপ্রীত বুমরাহর একটা নো-বলই গুড়িয়ে দেয় ভারতকে।

যখন বুমরার বলে উইকেটের পিছনে ফখর জামানের ক্যাচ নিয়েছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। কিন্তু কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই ভুল ভাঙে। নো-বল করেছেন বুমরা। তাতে আউট থেকে বেঁচে যান ফখর। সেই ম্যাচ ১১৪ রানের ইনিংস খেলেন ফখর। ভারতকে ১৮০ রানের বিশাল ব্যবধানে হারায় পাকিস্তান।

কিন্তু বিখ্যাত অনেক বোলার আছেন যারা পুরো কেরিয়ারে একটাও নো-বল করেননি। এরা হলেন-

কপিল দেব (ভারত)

ভারতের সেরা অল-রাউন্ডার কপিল দেব। ১৯৮৩ তাঁর অধিনায়কত্বেই প্রথম বিশ্বকাপ ওয়ানডে বিশ্বকাপ জিতেছিল ভারত। বল হাতে একাধিক রেকর্ড রয়েছে কপিলের ঝুলিতে। কপিল ক্রিকেট ক্যারিয়ার জীবনে কখনো নো বল করেননি। একজন ফার্স্ট বোলারের জন্য যেটা বেশ কঠিন। ১৩১টি টেস্ট ও ২২৫টি ওয়ান ডে খেলেও ওভার নো বল করেননি ভারতের বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক কপিল।

ইয়ান বথাম (ইংল্যান্ড)

ইংল্যান্ডের ইয়ান বথামের নামের পাশেও আছে অল-রাউন্ডার তকমা। ইংল্যান্ডের এই ব্যাটসম্যান-বোলার বিশ্ব ক্রিকেটের ইতিহাসে নিজের নাম লিখে রেখেছেন স্বর্ণাক্ষরে। তাঁর পা-ও কখনই পেড়িয়ে যায়নি লাইন। স্টাইলিস্ট এই ব্রিটিশ ক্রিকেটারের খেলা চিরকাল মনোরঞ্জন করে এসেছে ক্রিকেট সমর্থকদের। সেই বথামের নামের পাশেও নেই কোন নো-বলের রেকর্ড। ইংল্যান্ডের হয়ে খেলেছেন ১০২টি টেস্ট ও ১১৬টি ওয়ান ডে।

ইমরান খান (পাকিস্তান)

মনে হতে পারে এই রেকর্ড যেন সব অল-রাউন্ডারদের জন্যই। পাকিস্তান ক্রিকেটার ইমরান খানের সময়ে তিনিই ছিলেন সব থেকে স্টাইলিস্ট ক্রিকেটার। বল হাতে তাঁকে দেখার জন্য মুখিয়ে থাকত ক্রিকেট বিশ্ব। ১৯৯২ সালে তাঁর অধিনায়কত্বেই পাকিস্তানের ঘরে এসেছিল একমাত্র বিশ্বকাপ। তিনিও কখনও তাঁর পুরো কেরিয়ারে একটিও নো-বল করেননি। ৮৮টি টেস্ট ও ১৭৫টি একদিনের ম্যাচ খেলেছেন তিনি।

ডেনিস লিলি (অস্ট্রেলিয়া)

ভারত, পাকিস্তান, ইংল্যান্ডের দলে নাম লিখিয়ে ফেলেছে অস্ট্রেলিয়াও। ডেনিস লিলির হাত ধরে। সর্বকালের সেরা বোলার ডেনিস লিলিও কখনও পেড়িয়ে যাননি নো বলের গণ্ডি। তাঁকে বলা হত সব থেকে ‘ডিসিপ্লিনড’ ফার্স্ট বোলার। যাঁর নামের পাশে কখনও লেখা হয়নি নো-বল। যদিও বাকিদের তুলনায় অনেক কম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন তিনি। ৭০টি টেস্ট ও ৬৩ ওয়ানডেতে থামতে হয়েছে অস্ট্রেলিয়ান এই বোলারকে।

মন্তব্য

আপনার ইমেইল গোপন থাকবে - আপনার নাম এবং ইমেইল দিয়ে মন্তব্য করুন, মন্তব্যের জন্য ওয়েবসাইট আবশ্যক নয়

*

Open

Close