ব্রেকিং:
Home » এক্সক্লুসিভ » নরসিংদীতে খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানাতে আসা নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জ

নরসিংদীতে খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানাতে আসা নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জ

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের কামারখোলা এলাকায় দলের চেয়ারপারসনকে স্বাগত জানাতে আসা বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ।
সোমবার বেলা পৌনে ১২ টার দিকে খালেদা জিয়ার গাড়িবহর কামারখোলায় পৌঁছলে বিএনপি নেতাকর্মীরা দলীয় প্রধানকে স্বাগত জানাতে রাস্তার পাশে আসার চেষ্টা করেন। কিন্তু পুলিশের বেধরক লাঠিচার্জের কারণে তারা আসতে পারেন নি।
এরআগে সকাল ১১টার দিকে নরসিংদীর ভেলানগরেও পুলিশ বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর লাঠিচার্জ করে। পুলিশ তাদেরকে ধাওয়া দিয়ে সড়কের পাশ থেকে সরিয়ে দেয়।

শীর্ষ নিউজ

দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানাতে এসে পুলিশের হাতে আটক হয়েছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনিপর সহসভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন ও নজরুল ইসলাম আজাদ সহ ৬ বিএনপি নেতা।

সোমবার সকালে তারা খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানাতে সাইনবোর্ড এলাকায় আসেন। সকাল ১১ টার সামান্য আগে সেখান থেকে পুলিশ তাদেরকে আটক করে।

উৎসঃ শীর্ষনিউজ

নোয়াখালী জেলা জামায়াতের আমিরসহ গ্রেপ্তার ১১

নোয়াখালীর বিভিন্ন উপজেলায় বিশেষ অভিযান চালিয়ে জেলা জামায়াতে ইসলামীর আমিরসহ ১১ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রবিবার দিবাগত রাত থেকে সোমবার সকাল পর্যন্ত পৃথক পৃথক স্থান থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে রয়েছেন জেলা জামায়াতের আমির মাওলানা মোহাম্মদ আলাউদ্দিন, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা যুবদলের সভাপতি আব্দুল মতিন লিটনসহ ১১ নেতাকর্মী।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নাশকতার মামলায় ও পুনরায় নাশকতা সৃষ্টির আশঙ্কায় জেলার বিভিন্ন স্থানে বিশেষ অভিযান চালায় পুলিশ।

পুলিশ জানায়, সোমবার দুপুরে গ্রেপ্তারকৃতদের কারাগারে পাঠানো হবে।

আগামী বৃহস্পতিবার বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা একটি দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণার কথা রয়েছে। এই রায়কে ঘিরে বিএনপি রাজপথে নামতে পারে এমন আশঙ্কা থেকে সারাদেশে ব্যাপক ধরপাকড় চলছে। যদিও পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে এটা তাদের স্বাভাবিক অভিযান। বিএনপির গণগ্রেপ্তারের অভিযোগও নাকচ করেছে সংস্থাটি।

ঢাকাটাইমস

ছাত্রদল সভাপতিসহ বিএনপি-জামায়াতের ৬৯ জন গ্রেফতার

ঝিনাইদহের ৬ উপজেলায় অভিযান চালিয়ে ছাত্রদলের কেসি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ শাখার সভাপতি আব্দুস সালামসহ বিএনপি ও জামায়াতের ৬৯ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ সময় ৭টি ককটেল উদ্ধার করা হয়।

রোববার সন্ধ্যা থেকে সোমবার ভোর পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে এদের গ্রেফতার করা হয়।
পুলিশের বিশেষ (ডিএসবি) শাখা সূত্রে জানা গেছে, পুলিশের নাশকতা বিরোধী অভিযানে ঝিনাইদহ সদর উপজেলা থেকে ২০ জন, মহেশপুর থেকে ১৭ জন, কোটচাঁদপুরে ৭ জন, কালীগঞ্জে ৫ জন, শৈলকুপায় ১৫ জন ও হরিণাকুন্ডু উপজেলা থেকে ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে ৬ জন বিএনপি, ১৬ জন জামায়াত ও অন্যান্য মামলায় ৪৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়। এরমধ্যে ঝিনাইদহ পৌর এলাকার কালীচরণপুর যুবদলের সভাপতি বকুল ও হরিণাকুন্ডু উপজেলা যুবদলের সভাপতি গাড়াবাড়িয়া গ্রামের তিজারত মেম্বর রয়েছে। ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী শেখ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, নাশকতা পরিকল্পনার সময় ৬ বিএনপি, ১৬ জামায়াত নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় জেলার মহেশপুর থেকে একটি ও সদর উপজেলা থেকে ৬টি ককটেল উদ্ধার করা হয়।

এদিকে রোববার রাতে যশোর বিমানবন্দর থেকে গ্রেফতার ঝিনাইদহ জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও হরিণাকুন্ডু উপজেলা চেয়ারম্যান এড এম এ মজিদকে ঝিনাইদহে আনা হয়েছে।
সোমবার সকালে ঝিনাইদহ সদর থানা পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে আদালতে সোপর্দ করে। নাশকতা মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়।
শীর্ষনিউজ

মন্তব্য

আপনার ইমেইল গোপন থাকবে - আপনার নাম এবং ইমেইল দিয়ে মন্তব্য করুন, মন্তব্যের জন্য ওয়েবসাইট আবশ্যক নয়

*

Open

Close