Home » রাজনীতি » প্রধানমন্ত্রীর কথা ফেলবেন না শাকিব : অপু

প্রধানমন্ত্রীর কথা ফেলবেন না শাকিব : অপু

তালাকানামার পাওয়ার পর গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে নিজের জন্য কিছু সময় চেয়েছিলেন চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় নায়িকা অপু বিশ্বাস। আর সময় নিয়েই অপু জানালেন, শাকিবের সঙ্গে সংসার করতে চান। এজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহায়তা চান তিনি।

অপু বলেন, ‘আমি কাগজ হাতে পেয়েছি, এখানে যে অভিযোগ রয়েছে, আমি বলব আমি নির্দোষ। আমি সব সময়ই শাকিব খানের সংসার করতে চেয়েছি, এখনও চাই। আমি যা বলছি, যা করছি সবই শাকিবকে পাওয়ার জন্য। আমি শাকিবের সব ধরনের শর্তে রাজি আছি, শুধু সংসারটা আমি করতে চাই। এর আগে আমি যখন চিকিৎসার জন্য কলকাতায় গিয়েছিলাম তখন শাকিব রাগ করেছিলেন, কেন আমি বাচ্চাকে তালা মেরে গিয়েছিলাম।

আসলে আমার কাছে সব চাইতে সিকিউর্ড মনে হয়েছিল, তাই বাসায় রেখে গিয়েছিলাম, তা ছাড়া পরের দিন কিন্তু আমি চলেও আসি। সব কিছুর ঊর্ধ্বে আমি সংসার করতে চাই। শাকিবকে আমি ভালোবেসেছি, তাকেই জীবন চিন্তা করেছি। বছরের পর বছর তার সাথে আমি থেকেছি, তার বাসার প্রত্যেকটা জিনিসপত্র আমার নিজের হাতে কেনা। আমি কেমন করে একা থাকব তাকে ছাড়া? আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে সাহায্য চাই, তিনি যেন আমাদের মিলিয়ে দেন।’

গত এপ্রিলে ঢাকাই ছবির নতুন নায়িকা শবনম বুবলীর সঙ্গে শাকিব ঘরোয়া পরিবেশে একটি ছবি তোলেন। ছবিটিতে ‘ফ্যামিলি টাইম’ ক্যাপশন লিখে নিজের সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে প্রকাশ করেন বুবলী। এর পরই অপু বিশ্বাসের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি ঘটে শাকিব খানের। ছবিটি প্রকাশের পর পরই গণমাধ্যমে দীর্ঘদিন গোপনে থাকা বিয়ে ও সন্তানের বিষয়টি খোলাসা করেন অপু।

শীত প্রায় এসেই গেল। আর শীত এসে যাওয়া মানেই ত্বকের শুষ্কভাব অনুভূত হওয়া, ত্বক খসখসে হয়ে যাওয়া এবং ত্বক ফটে যাওয়া। শরীরের অন্যান্য অংশের তুলনায় ঠোঁটের ত্বকের চামড়া কোমল হওয়ায় শীতকালে ঠোঁট ফাটার একটা প্রবণতা থাকেই। বাজারে পাওয়া পেট্রোলিয়াম জেলি তো অনেকেই ব্যবহার করেন, কিন্তু এই শীতে ঠোঁটের যত্ন নিতে ব্যবহার করতে পারেন ঘরে তৈরি কিছু রেমিডি।

চিনি: দু-চামচ চিনির সঙ্গে এক চা-চামচ মধু মিশিয়ে ঠোঁটে লাগিয়ে নিন। এবার আলতে করে ঠোঁটের উপর মাসাজ করে নিন। মিনিটখানেক এমন করার পর ঈষদুষ্ণ জলে ধুয়ে নিন।

মধু: মধু ঠোঁটের ত্বক নরম রাখতে মধু বিশেষ উপকারী। দিনের যেকোনও সময়ে মধু এমনিও লাগাতে পারেন, তবে মধুর সঙ্গে একটু গ্লিসারিন মিশিয়ে নিলে ফল আরও ভাল হবে।

গোলাপের পাপড়ি: বাজার থেকে গোলাপের পাপড়ি কিনে এনে তা দুধে অথবা গ্লিসারিনে ভিজিয়ে রাখুন বেশ কয়েক ঘণ্টা। এবার গোলাপের পাপড়িগুলির একটি মণ্ড বানিয়ে নিন। এই মণ্ডটি দিনে ৩ বার করে লাগিয়ে নিন। ঠোঁট ফাটার হাত থেকে রক্ষা পাবেন।

নারকেল তেল ও ক্যাস্টর অয়েল: শুষ্ক আবহাওয়ায় নারকেল তেল ও ক্যাস্টর অয়েল ত্বককে কোমল রাখতে বিশেষভাবে সাহায্য করে। রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে এক চামচ ক্যাস্টর অয়েল, এক চা-চামচ গ্লিসারিন এবং কয়েক ফোঁটা লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে নিয়ে ঠোঁটে লাগিয়ে নিন। পরের দিন সকালে উঠে ঈষদুষ্ণ জলে ধুয়ে নিন। এতে শীতকালেও আপনার ঠোঁট থাকবে কোমল এবং সুন্দর।

লিপস্টিক এর ব্যবহার একটু কমাতে হবে। ব্যবহার করলেও হালকা রং এরটাই ভালো,কারণ গাঢ় রঙে লিপস্টিক এ ঠোঁট বেশি কালো হয়ে যায়। ঠোঁটে লিপস্টিক এর পরিবর্তে লিপ আইস ব্যবহার করতে পারেন।

ঠোঁটকে সতেজ রাখতে রাতে ঘুমানোর আগে কিংবা সবসময়ই গ্লিসারিন ব্যবহার করুন। সাবান থেকে ঠোঁটকে দূরে রাখুন। ফেসওয়াস কিংবা ক্ষার বিহিন সাবান লাগানো যেতে পারে। মুখের ভেতর পরিস্কার রাখুন, প্রয়োজনে মাউথওয়াশ ব্যবহার করুন।

প্রতিদিন দুধ এর সাথে একটু লেবুর রস মিশিয়ে ঠোঁটে লাগান, দেখবেন আস্তে আস্তে ঠোঁটের কালোভাব দূর হয়ে গোলাপি আভা আসবে। ঠোঁট ফাটলে চামরা উঠানও যাবে না। ঠোঁট ফাটা রোধে সমপরিমান গ্লিসারিন আর লিপজেল মিক্স করে ব্যাবহার করতে পারেন। শীতকালে নিয়মিত লিপজেল বা লিপবাম ব্যাবহার করুন।

ব্যাস হয়ে গেল ঠোঁটের যত্ন । এবার হাসুন প্রান খুলে শীতের হিমেল হাওয়ায়।

মন্তব্য

আপনার ইমেইল গোপন থাকবে - আপনার নাম এবং ইমেইল দিয়ে মন্তব্য করুন, মন্তব্যের জন্য ওয়েবসাইট আবশ্যক নয়

*

Open

Close