Home » খেলা » বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা টি-২০ সিরিজের চূড়ান্ত সময়সূচি প্রকাশ

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা টি-২০ সিরিজের চূড়ান্ত সময়সূচি প্রকাশ

ওয়ানডে হয়েছে, টেস্টও হলো। বাকি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচের টি-২০ সিরিজ। ১৫ ফেব্রুয়ারি মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে হবে সিরিজের প্রথম ম্যাচ। এরপর ১৮ ফেব্রুয়ারি সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে হবে সিরিজের দ্বিতীয় তথা শেষ ম্যাচ। দু’টি ম্যাচই শুরু হবে সন্ধ্যা ৭টায়।

ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজের মাধ্যমে ২০১৮ সাল শুরু করে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়ের মধ্যকার এই সিরিজটি ১৫ জানুয়ারি শুরু হয়ে শেষ হয় ২৭ জানুয়ারি। সিরিজে বাংলাদেশ রানার আপ হয়। চ্যাম্পিয়ন হয় শ্রীলঙ্কা। এরপর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজ খেলে বাংলাদেশ। এই সিরিজটি ১-০ ব্যবধানে জিতে নেয় শ্রীলঙ্কা। সিরিজের প্রথম ম্যাচটি ড্র হয়। আর দ্বিতীয় ম্যাচটি ২১৫ রানে শ্রীলঙ্কা জয়ী হয়।

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা টি-২০ ফিকশ্চার :

তারিখ-ম্যাচ-ভেনু-সময়
১৫ ফেব্রুয়ারি প্রথম টি-২০ মিরপুর সন্ধ্যা ৭টা
১৮ ফেব্রুয়রি দ্বিতীয় টি-২০ সিলেট সন্ধ্যা ৭টা

এদিকে সাকিব আল হাসানকে নিয়েই টি-২০ দল ঘোষণা করে বিসিবি। অথচ সাকিব জানালেন, চোট এখনো সেরে না ওঠায় তার পক্ষে টি-২০ সিরিজেও খেলার সম্ভাবনা কম। দুর্নীতি দমন কমিশনের শুভেচ্ছা দূত হলেন সাকিব। গতকাল দুপুরে দুর্নীতি দমন কমিশনে সাকিব জানান, ‘টি-২০ সিরিজেও বোধহয় খেলতে পারব না। কারণ ডাক্তার বলেছেন, পুরো ক্ষত সারতে আরো দুই সপ্তাহ লাগবে। সে রকম হলে আসলে কিভাবে খেলব। আশা করি, দুই সপ্তাহের মধ্যে পুনর্বাসন শেষ করে শ্রীলঙ্কা সফরে খেলতে পারব।’

ফলে সাকিবের জায়গায় প্রথমবারের মতো নেতৃত্বে থাকবেন তামিম ইকবাল খান। তিনি অবশ্য এ ফরম্যাটে সহ-অধিনায়কের দায়িত্বে ছিলেন। টেস্টে ছিলেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। ইতোমধ্যে সফরকারী শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচের টি-২০ সিরিজের জন্য গত শনিবার ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। ১৫ সদস্যের দলে সাকিব আল হাসান ফিরলেও না খেলতে পারার কারণে তার বদলে মিরপুরের প্রথম টি-২০ ম্যাচে অধিনায়কত্বের দায়িত্ব পেলেন দলের ওপেনার তামিম ইকবাল।

এ দিকে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজে শ্রীলঙ্কার কাছে ট্রফি খুইয়েছে বাংলাদেশ। ফাইনালে সাকিবকে হারিয়ে আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি টাইগাররা। এরপর টেস্টেও একই দশা। প্রতিনিয়তই সাকিবের অভাব ভালোভাবেই টের পেয়েছে বাংলাদেশ। তাই টি-২০ সিরিজে তাকে না পাওয়া দলের জন্য বেশ বড়সড়ই ধাক্কা। তা ছাড়া এ সংস্করণেই যে তিনি সবচেয়ে বেশি অভিজ্ঞ। দলের অধিনায়কও।

অন্য সবার মতো ঢাকা টেস্টে হার মেনে নিতে পারেননি সাকিব আল হাসান। তবে টি-২০ সিরিজে জেতার ব্যাপারে এখনো আশাবাদী সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের নেতৃত্বে থাকা এ তারকা, ‘সবারই লক্ষ্য ছিল জেতার। কিন্তু ক্রিকেটে সবাই যেটা চায়, সব সময় সেটা হয় না। এটাই স্বাভাবিক। তবে আমি খুবই আশাবাদী টি-২০ তে আমরা ঘুরে দাঁড়াব এবং ভালো একটা ফল বের করে আনতে পারব।’

সাকিবের মতো প্রায় একই কথা বললেন বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী, ‘সাকিবের আঙুলের বর্তমান যেমন অবস্থা তাতে প্রথম টি-২০তে খেলার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। তবে হালকা ঝুঁকি নিয়ে দ্বিতীয় ম্যাচে খেলতে পারে। সেটিও এখনই বলা কঠিন। আরো কিছু দিন গেলে বোঝা যাবে পরিস্থিতি কী।’

ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ফিল্ডিং করতে গিয়ে বাঁ হাতের কনিষ্ঠ আঙুলে আঘাত পান সাকিব। শুরুতে মাঠে চিকিৎসা নিলেও পরে বেরিয়ে আসেন তিনি। সে দিন ড্রেসিং রুমে কিছুক্ষণ বরফ দিয়ে রাখার পর হাসপাতালে নেয়া হয় এ অলরাউন্ডারকে। এমনকি সেলাইও করতে হয় আঙুলে। এরপর শুরুতে কেবল চট্টগ্রাম টেস্টে তার খেলা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছিলেন নির্বাচকেরা। কিন্তু ধারাবাহিকভাবে ঢাকা টেস্টের পর এবার টি-২০ সিরিজ থেকেও ছিটকে গেলেন তিনি।

মন্তব্য

আপনার ইমেইল গোপন থাকবে - আপনার নাম এবং ইমেইল দিয়ে মন্তব্য করুন, মন্তব্যের জন্য ওয়েবসাইট আবশ্যক নয়

*

Open

Close