Home » বিনোদন » বাংলা চলচ্চিত্রে সবচেয়ে আলোচিত বিচ্ছেদগুলো (ছবিসহ)

বাংলা চলচ্চিত্রে সবচেয়ে আলোচিত বিচ্ছেদগুলো (ছবিসহ)

২০০৬ সালে মুক্তি প্রাপ্ত এফআই মানিকের ‘কোটি টাকার কাবিন’ ছবিতে শাকিব-অপুর প্রথম দেখা, এরপর প্রেম। চলতি বছরের ১০ এপ্রিল হঠাৎ করেই দেশের একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দিয়ে হাটে হাড়ি ভাঙেন অপু।

এই খবর প্রকাশের পর থেকেই ২০০৮ সালে বিয়ে, ২০১৬ সালের ২৭শে সেপ্টেম্বর সন্তানের জন্ম, বুবলির সঙ্গে প্রেমের গুঞ্জন এবং বিবাহ বিচ্ছেদ– সব কিছুই আলোচিত বিষয়। বর্তমানে শোবিজ অঙ্গনের সবচেয়ে আলোচিত বিষয় শাকিব-অপুর ডিভোর্স।

চিত্রনায়ক শাকিব খান তার স্ত্রী চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসকে বিবাহ বিচ্ছেদের নোটিশ পাঠিয়েছেন। শাকিব খানের আইনজীবী শেখ সিরাজুল ইসলাম জানিয়েছেন, আগামী ৯০ দিনের মধ্যে যদি তাদের মত পরিবর্তন না হয় তাহলে ডিভোর্স কার্যকর হয়ে যাবে।

বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে শাকিব-অপু ছাড়াও আরো অনেকেরই আলোচিত বিচ্ছেদের গল্প রয়েছে।

জহির রায়হান ও সুমিতা দেবী: ১৯৬১ সালে চিত্রনায়িকা সুমিতা দেবীকে বিয়ে করেন জহির রায়হান। সেই সংসার টেকেনি। সেই সময়ের আলোচিত ডিভোর্সের ঘটনা ছিল সেটি। এরপর জহির রায়হানের সঙ্গে বিয়ে হয় সুচন্দার।

ববিতা ও ইফতেখার: বাংলাদেশের কিংবদন্তী অভিনেত্রী ববিতার বিয়ে হয়েছিল ব্যবসায়ী ইফতেখারের সঙ্গে। সেই বিয়ে টিকেছিল মাত্র দুই বছর। এই দম্পতির একমাত্র ছেলে অনিককে নিয়ে ববিতা এখন একাই আছেন।

আলমগীর ও খোশনুর: জনপ্রিয় নায়ক আলমগীর ও গীতিকার খোশনুর ঘর বেঁধেছিলেন। তাদের সংসারও ভেঙে যায়। পরে রুনা লায়লার সঙ্গে বিয়ে হয় আলমগীরের।

হুমায়ুন ফরিদী ও সুবর্না মুস্তাফা: চলচ্চিত্র জগতের বিচ্ছেদের আরেকটি আলোচিত ঘটনা ছিল অভিনেতা হুমায়ুন ফরিদী ও সুবর্না মুস্তাফার ডিভোর্স।

জসিম ও সুচরিতা: চিত্রনায়ক জসিম প্রেম করে বিয়ে করেন চিত্রনায়িকা সুচরিতাকে। পরবর্তীতে তাদের বিচ্ছেদ হয়। এরপর তিনি বিয়ে করেন অভিনেত্রী নাসরিনকে। আর সুচরিতা বিয়ে করেন প্রযোজক কে এম আর মঞ্জুরকে।

এফ কবির চৌধুরী ও অঞ্জু ঘোষ: চলচ্চিত্র নির্মাতা এফ কবির চৌধুরী ১৯৮২ সালে অঞ্জু ঘোষকে চলচ্চিত্র জগতে আনেন। একাধিক ব্যবসা সফল ছবি উপহার দেয়ার পরে এফ কবির চৌধুরীর সঙ্গেই প্রেম এবং বিয়ে হয় অঞ্জুর। তবে, সেই বিয়ে বিচ্ছেদে গড়ায়। অঞ্জু এখন কলকাতায়।

সোহেল চৌধুরী, দিতি ও ইলিয়াস কাঞ্চন: আশির দশকে ‘নতুন মুখের সন্ধানে’র মাধ্যমে চলচ্চিত্রে আসেন সোহেল চৌধুরী ও দিতি। আমজাদ হোসেন পরিচালিত ‘হীরামতি’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে গিয়ে দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই প্রেম গড়ায় বিয়েতে। তাদের ঘরে দুই সন্তানও জন্ম নেয়। কিন্তু নানা কারণে আশির দশকের শেষে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। এরপর নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন চিত্র নায়িকা দিতিকে। কিন্তু বেশি দিন টিকেনি এই সংসারও।

রোজি ও আবদুস সামাদ: ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় নায়িকা রোজি প্রেম করে বিয়ে করেছিলেন চিত্রগ্রাহক, কাহিনীকার, চলচ্চিত্রকার আবদুস সামাদ কে। সেই বিয়ের পরিণতিও ভালো হয়নি। বিচ্ছেদের পরে পরিচালক মালেক আফসারিকে বিয়ে করেন রোজি।

মন্তব্য

আপনার ইমেইল গোপন থাকবে - আপনার নাম এবং ইমেইল দিয়ে মন্তব্য করুন, মন্তব্যের জন্য ওয়েবসাইট আবশ্যক নয়

*

Open

Close