ব্রেকিং:
Warning: mysql_query(): Unable to save result set in /home/dnn/public_html/wp-includes/wp-db.php on line 1889
Home » শীর্ষ সংবাদ » যেভাবে ভয়ঙ্কর বিপদ থেকে বেঁচে গেল বাংলাদেশ

যেভাবে ভয়ঙ্কর বিপদ থেকে বেঁচে গেল বাংলাদেশ

নিউজ ডেস্ক : মোরা’র আঘাতস্থলের কাছে পার্বত্য এলাকা এবং আঘাত হানার সময় সাগরে জোয়ার না থাকায় জলোচ্ছ্বাসের উচ্চতা কম ছিল, সেকারণে ঘূর্ণিঝড় মোরা আশঙ্কার তুলনায় কম ক্ষয়ক্ষতি করেছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। নয়ত ভয়ঙ্কর বিপদ হতে পারতো।অধিদপ্তরের তথ্যানুযায়ী উপকূলের কাছাকাছি উৎপত্তি হওয়ায় ঘুর্ণিঝড় ‘মোরা’ বেশি শক্তি নিয়ে আঘাত হানতে পারেনি। মোরা বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রম করার পরও বড়পর্দার কম্পিউটার মনিটরে সার্বক্ষণিক নজর রাখছেন আবহাওয়া অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।

মোরা নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করলেও এই ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত জারি করানো ঘূর্ণিঝড়টি সম্পর্কে বিস্তারিত জানান অধিপ্তরের আবহাওয়াবিদ
বজলুর রশীদ। এই ঘূর্ণিঝড়টি যদি চট্টগ্রাম উপকূলের বদলে খুলনা-বরিশাল উপকূলীয় এলাকায় আঘাত হানতো তাহলে ক্ষতির মাত্রাটা বেশি হতো বলে জানান তিনি।

এই আবহাওয়াবিদ বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড়ের সর্বোচ্চ শক্তিশালী রূপ বিবেচনায় নিয়ে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত জারি করা হয়। তবে এই ঘূর্ণিঝড়গুলোর মাত্রা এক নয়। ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত ঘোষণা করা হলেও ঘূর্ণিঝড় মোরা ‘ভেরি সিভিয়ার’ বা খুব প্রবল ঘূর্ণিঝড়। সিডরের মতো ‘সুপার সাইক্লোন’ ছিলো না।’

তিনি আরও জানান, বৃষ্টিপাতের মাধমে ঘূর্ণিঝড় মোরা দ্রুতই শক্তি হারিয়ে ফেলে। এই কারণে ক্ষয়ক্ষতির দিক থেকে ভয়ঙ্কর হতে পারেনি মোরা।

ভৌগলিক কারণেই এ অঞ্চলে সৃষ্ট বেশিরভাগ ঘূর্ণিঝড়ই বাংলাদেশের ওপর দিয়ে উপকূল অতিক্রম করে। তবে, সাধারণত ১২শ’ কিলোমিটার বা তার চেয়ে বেশি পথ পেরিয়ে উপকূল অতিক্রম করা ঝড়গুলো বেশি শক্তি সঞ্চয় করে আঘাত হানে। রোববার মধ্যরাতে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ৮’শ কিলোমিটার দক্ষিণে বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপ হিসেবে ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’র উৎপত্তি হয়।

সাগরে ও স্থলে টানা দুই সপ্তাহের তাপপ্রবাহের ফলে সৃষ্ট লঘুচাপটি প্রথমে নিম্নচাপ ও পরে গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়ে পূর্ব মধ্য বঙ্গোপসাগরে রূপ নেয় ঘূর্ণিঝড় হিসেবে। আরো অগ্রসর হয়ে ’মোরা’ মঙ্গলবার ভোর ৬টায় কুতুবদিয়া দিয়ে কক্সবাজার-চট্টগ্রাম উপকূল অতিক্রম করে।

 

মন্তব্য

আপনার ইমেইল গোপন থাকবে - আপনার নাম এবং ইমেইল দিয়ে মন্তব্য করুন, মন্তব্যের জন্য ওয়েবসাইট আবশ্যক নয়

*

Open

Close