Home » লাইফ স্টাইল » শীতে পা ফাটা রোধ করতে চান? জেনে নিন পদ্ধতি!

শীতে পা ফাটা রোধ করতে চান? জেনে নিন পদ্ধতি!

শীতের রুক্ষ হাওয়ায় ত্বক হয়ে পড়ে প্রাণহীন। বিশেষ করে পায়ের গোড়ালি ফাটতে শুরু করে সবার আগে। এখন থেকেই তাই যত্ন নিন পায়ের।
পা ফাটা থেকে মুক্তি পেতে পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে পা। জেনে নিন পা ফাটা থেকে মুক্তি পেতে কী করবেন:

স্ক্রাব –
পা ফাটা থেকে মুক্তি পেতে পায়ের গোড়ালি নিয়মিত স্ক্রাব করা জরুরি। গোসলের আগে কুসুম গরম পানিতে পায়ের গোড়ালি ডুবিয়ে রাখুন। কিছুক্ষণ পর পিউমিস স্টোন দিয়ে ঘষে মরা চামড়া তুলে দিন। গোসল শেষ করে পেট্রোলিয়াম জেলি অথবা ময়েশ্চারাইজার লাগান। রাতে ঘুমানোর আগে পায়ে মোজা পরে ঘুমাবেন।

গ্লিসারিন –
গ্লিসারিনের সঙ্গে লেবুর রস ও গোলাপজল মিশিয়ে ফেটে যাওয়া গোড়ালিতে লাগান। দূর হবে ফাটা।

পাকা কলা –
অতিরিক্ত পাকা কলা পা ফাটা দূর করার জন্য খুবই কার্যকর। একটি পেকে যাওয়া কলা ব্লেন্ড করে নিন। একটি অ্যাভোকাডোর পেস্ট মেশান। মিশ্রণটি পায়ের গোড়ালিতে লাগিয়ে রাখুন। কিছুক্ষণ পর কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

নারিকেল তেল –
গোড়ালির ফাটা অংশের চামড়া ঘষে উঠিয়ে ফেলুন। পা ধুয়ে মুছে নারিকেল তেল ম্যাসাজ করে নিন গোড়ালিতে। ধীরে ধীরে দূর হবে ফাটা।

লেবু –
কুসুম গরম পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে পা ডুবিয়ে রাখুন ১০ মিনিট। তারপর পা উঠিয়ে স্ক্রাব করে নিন। ধুয়ে মুছে গোড়ালিতে ময়েশ্চারাইজার লাগান।

সবাই এখন যা পড়ছে :-

খুব বেশি পর্ন দেখেন? জানেন কী ক্ষতি করছেন নিজের!

ব্যস্ত জীবনের মধ্যে পর্ন দেখার জন্য অনেকেই সময় বের করে নেন। অনেকেই দিনান্তে পর্ন দেখেন সাময়িক আনন্দলাভের আশায়। কিন্তু জানেন কি, বেশি মাত্রায় পর্ন দর্শন কতটা সর্বনাশ করছে আপনার? সমীক্ষা করে দেখা গিয়েছে, যাঁরা নিয়মিত পর্ন দেখেন, তাঁরা বিভিন্ন ধরনের সমস্যায় ভুগছেন। পৃথিবীর একাধিক দেশের পুরুষ, নারীর উপর এই সমীক্ষা চালিয়ে দেখা গিয়েছে ভয়ঙ্কর সব সমস্যার জন্ম দিচ্ছে এই অভ্যাস।

মানসিক বিকৃতির জন্ম দেয়। অতিরিক্ত পর্ন মস্তিস্কের উপর চাপ ফেলে। স্বাভাবিক বিচক্ষণতা লুপ্ত হতে থাকে। বাস্তব থেকে দূরে সরিয়ে দেয় মানুষকে। বাস্তব এবং অবাস্তবের মধ্যে এক অদ্ভুত গুলিয়ে দেওয়া পরিস্থিতি তৈরি করে।

ক্রমশ নিজের ব্যক্তিগত আবেগ, ইমোশনের উপর থেকে নিয়ন্ত্রণ হারাতে শুরু করে। হঠাৎ রেগে যাওয়াও এক অন্যতম লক্ষণ। সর্বোপরি একটা সুস্থ জীবন থেকে আপনাকে ক্রমশ দূরে সরিয়ে নিয়ে যাবে আপনার পর্ন-দর্শন। শুধু জীবনসঙ্গী নয়, সন্তানদের থেকেও দূরে সরিয়ে নিয়ে যাবে আপনাকে। কারণ অতিরিক্ত পর্ন দেখলে পৃথিবীর স্বাভাবিক, নিষ্পাপ আনন্দ আপনি উপভোগ করতেই ভুলে যাবেন ধীরে ধীরে। ব্যক্তিগত জীবন অসুখী করে তোলে। সঙ্গীকে সুখী করা বা সঙ্গীর থেকে আনন্দ পাওয়ার ক্ষেত্রে অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায় আপনার এই অভ্যাস।

চোরাবালি কি এবং এর থেকে বাঁচার উপায় জেনে নিন !

চোরাবালির কথা হয়তো অনেকেই শুনেছেন। কিন্তু এই চোরাবালির খপ্পড়ে যারা পড়েছেন কেবল তারাই জানেন এটি কতটা ভয়ংকর।

চোরাবালিতে আটকে গেলে যা করতে হবে : চোরাবালিতে আটকে গেলে একদমই অধৈর্য হওয়া যাবে না। অধৈর্য হয়ে হাত-পা ছোড়াছুড়ি করলে আরও বেশি আটকে পড়ার সম্ভাবনা থাকে। সবার মনে রাখা উচিত, চোরাবালি কিন্তু পানির চেয়ে অনেক বেশি ঘন। তাই চোরাবালিতে ভেসে থাকা পানির চেয়ে অনেক বেশি সহজ। যদি সঙ্গে কোনও ভারি বস্তু থাকে তাহলে তা ছেড়ে ফেলতে হবে। কারণ ভারি বস্তু আরও বেশি দ্রুত নিচে টেনে নিতে পারে। বেশিরভাগ চোরাবালির গভীরতা কম হয়। খানিকটা ডোবার পর হয়তো পা তলায় আটকে যেতে পারে। যদি তা না হয়, মানে যদি চোরাবালি খুব গভীর হয় তাহলে পুরোপুরি ডুবে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকতে পারে। সেক্ষেত্রে যেমন পানিতে আমরা যেভাবে সাঁতার কাটি, ঠিক সেভাবে নিজের শরীরকে যতটা সম্ভব অনুভূমিক করে ফেলতে হবে। তারপর খুব ধীরে ধীরে সাঁতরে চোরাবালির বাইরে আসার চেষ্টা করতে হবে। সাথে যদি অন্য কোনও ব্যক্তি থাকে তাহলে তাকে বলতে হবে নিরাপদ দূরত্ব থেকে রশি ফেলতে এবং এই রশি ধরে ধীরে ধীরে চোরাবালি থেকে উঠে আসা যাবে।

মন্তব্য

আপনার ইমেইল গোপন থাকবে - আপনার নাম এবং ইমেইল দিয়ে মন্তব্য করুন, মন্তব্যের জন্য ওয়েবসাইট আবশ্যক নয়

*

Open

Close