Home » রাজনীতি » ৫ লাখেই ক্ষমতা এরশাদের!

৫ লাখেই ক্ষমতা এরশাদের!

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান, সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, দুর্বলের সঙ্গে কেউ হাত মেলায় না। তাই শক্তি সঞ্চয় করো, হাত এগিয়ে আসবে। আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় জাতীয় পার্টির মহাসমাবেশে ৫ লাখ লোকের সমাবেশ ঘটাও, ক্ষমতা আমাদের নিশ্চিত।

আজ মঙ্গলবার রাজধানীর ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স (আইডিইবি) মিলনায়তনে জাতীয় পার্টির যৌথসভায় তিনি এ কথা বলেন।


এরশাদ বলেন, বর্তমানে দেশের অবস্থা ভালো নয়। আমার ধারণা, সামনে অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে। আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কাছে এ দেশের মানুষ নিরাপদ নয়। শুধু দেশের মানুষ নয়, এরা একদল আরেক দলের কাছে নিরাপদ নয়। আমাদের কাছে বিএনপি, আওয়ামী লীগ ও দেশের মানুষ সবাই নিরাপদ।

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ৩৭ মামলা হয়েছে উল্লেখ করে এরশাদ বলেন, আমার বিরুদ্ধে ৪২টি মামলা হয়েছিল। খালেদার এখনও ৫টা বাকি আছে।

তিনি আরো বলেন, জাতীয় পার্টির ৯০০ আসনে প্রাথী দেওয়ার ক্ষমতা আছে। এবার আমার জীবনের শেষ নির্বাচনে জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় রেখে মরতে চাই।

এ সময় সভায় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের, প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ, পানিসম্পদ মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু, প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন বাবলু, জাতীয় পার্টির ঢাকা মহানগর সদস্য ও সংসদ সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, সংসদ সদস্য ফখরুল ইমাম প্রমুখ।


‘মুজিব-এরশাদ পারেননি, হাসিনাও পারবে না’
বিএনপির ভাইস চেয়ার‌ম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, আমরা মুজিবকে পছন্দ করি নাই তিনি ক্ষমতায় থাকতে পারেন নাই। আমরা এরশাদকে পছন্দ করি নাই, ক্ষমতায় থাকতে পারেন নাই। আপনাকেও (শেখ হাসিনা) আমরা খুব ভালো আর পরিষ্কারভাবে বলি, আমরা আপনাকে পছন্দ করছি না। কারণ আপনি পা থেকে চুল পর্যন্ত দুর্নীতি যুক্ত একটি সরকার পরিচালনা করছেন।

গত শনিবার (৩০ ডিসেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের মিলনায়তনে বিএনপির সহযোগী সংগঠন কৃষক দলের ৩৭ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আলোচনায় এসব কথা বলেন বিএনপির ভাইস চেয়ার‌ম্যান।

তিনি বলেন, তারা বঙ্গবন্ধুকে পছন্দ করেন না বলে তিনি ক্ষমতায় টিকতে পারেননি, তার মেয়েকেও পছন্দ করেন না তাই তিনিও টিকতে পারবেন না।

শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে দুদু বলেন, তার মতো খারাপ, তার মতো অযোগ্য একজন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন পরিচালনার যেসব দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন, সকল অর্থে সেটা খারাপ।


বাংলাদেশ এখন সংকটময় অবস্থায়-এমন দাবি করে দুদু বলেন, শেখ হাসিনা চান আমরা যেনো তার অধীনে নির্বাচনে যাই। কিন্তু আমরা আপনার অধীনে নির্বাচন করতে চাই না। এত সরল একটি বাংলা, সরল একটি ঘোষণা তিনি বুঝতে চাচ্ছেন না।

আমরা সংঘাতে যেতে চাই না, আমরা রাস্তায় নেমে মানুষকে বিপন্ন করতে চাই না। কিন্তু তার অর্থ এই না, আপনি যা খুশি করবেন আমরা চেয়ে চেয়ে সেটা দেখব এটা আপনি ভাববেন না।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া তার ক্ষমতাকালে যত ভালো কাজ করে গিয়েছেন বর্তমান সরকার সেগুলোর সর্বনাশ করেছে বলেও অভিযোগ করেন দুদু।

সরকার বেগম জিয়াকে নানাভাবে নাজেহাল, বিপদগ্রস্ত, অপমানিত করছে অভিযোগ করে বিএনপি নেতা বলেন, বিচারের নামে তাকে (খালেদা জিয়া) কলঙ্কিত করে জেলখানায় নেয়ার ষড়যন্ত্র করছে।

দুদু বলেন, বেগম জিয়াকে যদি এই সরকার জেলে নেয়, তাহলে আমাদের রাজপথে নেমে আসতে হবে। প্রত্যেকের বড় সমাজ আছে, কৃষক সমাজ-কৃষিজীবী তারা যদি একবার রাস্তায় নেমে আসতে পারে, ছাত্র, শ্রমিক, যুবক, মহিলা তাহলে তাদের রুখার শক্তি তাদের (সরকার) আর থাকবে না। এবং বেগম জিয়াকে না নিয়ে আমরা তখন ঘরে ফিরব না।


কৃষক যেন ন্যায্যমূল্য পায় সে জন্য সরকার চালের দাম কিছুটা বাড়াতে চেয়েছে-অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের এ বক্তব্যের সমালোচনা করেন দুদু বলেন, ‘চালের দাম বেড়েছে ৭০ থেকে ৮০ টাকা। এটা আমাদের অর্থমন্ত্রী বলেছেন, তিনি এটা বানিয়েছেন। এরকম খারাপ অর্থমন্ত্রী এর আগে বাংলাদেশে দ্বিতীয়টি আর আসে নাই।

সরকার কৃষকদের কাছ থেকে ধান-চাল না কিনে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে কেনে বলে কৃষকরা ন্যায্যমূল্য পায় না বলেও অভিযোগ করা হয় আলোচনা সভায়।আরটিএনএন

মন্তব্য

আপনার ইমেইল গোপন থাকবে - আপনার নাম এবং ইমেইল দিয়ে মন্তব্য করুন, মন্তব্যের জন্য ওয়েবসাইট আবশ্যক নয়

*

Open

Close