করোনাভাইরাস আতঙ্কে কাঁপছে সারা বিশ্ব কিন্তু প্রশ্ন হলো সত্যিই কি রাস্তায় বাঘ-সিংহ ছেড়েছেন পুতিন?

0

করোনাভাইরাস আতঙ্কে কাঁপছে সারা বিশ্ব। পৃথিবীর ১৮৮টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়েছে মারণ এই ভাইরাস। মৃতের সংখ্যার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যাও। ওয়ার্ল্ড ওমিটারের দেয়া তথ্যমতে, সোমবার দুপুর পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৪১ হাজার ৭৬০ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৪ হাজার ৭৫৭ জনের।

ছড়িয়েছে ভ্লাদিমির পুতিনের দেশ রাশিয়াতেও। এরই মধ্যে সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে একটি ছবি। যেখানে দেখা গেছে প্রকাশ্য শহরের রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছে এক তাগড়া সিংহ। ছবি ভাইরাল হওয়ার পাশাপাশি শোনা গেছে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন নাকি সেখানকার রাস্তায় এসব সিংহদের ছেড়ে দিয়েছেন।

সঙ্গে আছে বাঘও! উদ্দেশ্য একটাই, করোনা সতর্কতায় আমজনতাকে বাড়িতেই সেলফ আইসোলেশন বা সেলফ কোয়ারেন্টিনে রাখা। পুতিন নাকি যেভাবেই হোক দেশবাসীকে গৃহবন্দি করতে মরিয়া। আর তাই রাস্তায় ৮০০ বাঘ-সিংহকে একসঙ্গে ছেড়ে দিয়েছেন তিনি, যাতে চাইলেও কেউ প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াতে না পারে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় সব প্ল্যাটফর্মেই গত কয়েকদিন ধরে ঘুরছে এসব ছবি এবং তথ্য। ফেসবুক-ইনস্টাগ্রাম-টুইটার, বাদ যায়নি কিছুই। তবে রাস্তায় বাঘ-সিংহ ছেড়েও করোনা থেকে রেহাই পায়নি পুতিনের দেশ। সেখানে এখন পর্যন্ত ৪৩৮ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। মৃত্যুও হয়েছে একজনের। আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে।

তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় এসব খবর এবং ছবি ভাইরাল হওয়ার ক’দিন পরেই জানা গেছে আসল তথ্য। এই সব খবরই যে আসলে ভুয়া সে কথা প্রকাশ্যে এসেছে। তার পাশাপাশি জানা গেছে ২০১৬ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার কোনও একটি রাস্তায় এই সিংহটিকে ঘুরে বেড়াতে দেখা গিয়েছিল। তখনই তোলা হয়েছিল ছবিটি।

নেট দুনিয়ায় পুরনো ছবি ভাইরাল বা ট্রেন্ডিং হওয়া নতুন ব্যাপার নয়। কিন্তু তা বলে এমন ভুয় খবর! আসল তথ্য সামনে আসতেই রীতিমতো হতবাক হয়ে গিয়েছেন নেটিজেনদের একাংশ। তবে কেবল বাঘ-সিংহ ছেড়ে দেয়া কিংবা করোনাভাইরাসের পরিসংখ্যান নিয়ে ভুল তথ্যই নয় এই ভুয়া খবরের তালিকায় রয়েছে আরও।

শোনা গিয়েছিল, রাশিয়াবাসীকে নাকি ২ সপ্তাহের জন্য বাড়িতে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। শুধু তাই নয়, করোনা সতর্কতায় এই নিয়ম না মানলে ৫ বছরের জেল হতে পারে বলেও নাকি ঘোষণা করেছিলেন পুতিন। তবে এই সব তথ্যই যে মিথ্যা এবার সেটা প্রকাশ্যে এসেছে।

যারা পুতিনকে নিয়ে দেদার ট্রোলে ভরিয়ে দিয়েছিলেন সোশ্যাল মিডিয়া, তারাই এবার বুঝেছেন যে আসলে ওই সিংহকে রাশিয়ার রাস্তায় ঘুরতে দেখা যায়নি। ওই পশুরাজ দক্ষিণ আফ্রিকার বাসিন্দা। এবং আমজনতাকে বাঘ-সিংহ কিংবা জেল কোনওটারই ভয় দেখিয়ে সেলফ কোয়ারেন্টিনড করতে চাননি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন।বিডি প্রতিদিন

Leave A Reply

Your email address will not be published.