Take a fresh look at your lifestyle.

‘এখনও রাজিবের ঠিকানায় ইন্টারভিউয়ের চিঠি আসে’

0

রাজধানীতে দুই বাসের চাপায় হাত হারানো এবং পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যাওয়া তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী রাজিব হাসানের ঠিকানায় এখনও ইন্টারভিউয়ের চিঠি আসে বলে আদালতকে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট রিটকারী আইনজীবী। মঙ্গলবার (৮ মে) বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে শুনানিকালে এ বিষয়টি আদালতকে অবহিত করেন ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল। মামলার শুরুতে আদালত বলেন, ‘এই ঘটনা মিডিয়ায় ফলাও করে আসলো। কিন্তু বাস কর্তৃপক্ষ কী করলো? তারা দেখেনি? সবাই দেখলো।’

জবাবে রাজিবের পক্ষে ক্ষতিপূরণ চেয়ে রিটকারী আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস কাজল বলেন, ‘সব মিডিয়ায় (ঘটনাটি) ফলাও করে এসেছে। এরপর আমরা আদালতের শরণাপন্ন হলাম। আপনারা আদেশ দিলেন। তারপর দুই বাসের কর্তৃপক্ষ ২০ হাজার করে মোট ৪০ হাজার টাকা দিলো। এখন সবাইকে জবাবদিহিতার আওতায় আনতে হবে।’তখন আদালত বলেন, ‘রাজিবের ব্রেনের বিষয়টা কখন ধরা পড়লো? আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস কাজল বলেন, ‘ঢাকা মেডিক্যালে, কিছু দিন পরে (সড়ক দুর্ঘটনার কিছুদিন পরে)। প্রথমে শমরিতায় (হাসপাতাল) নিয়েছিল। পরে ঢাকা মেডিক্যালে।’এ পর্যায়ে আদালত বলেন, ‘তার হাত গেছে। সবাই হাত নিয়ে দেখলো। কিন্তু শরীরের অন্য কোথাও আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে কিনা, তা কেউ খেয়াল করেনি?’

রুহুল কুদ্দুস কাজল বলেন, ‘পত্রিকায় দেখলাম, রাজিবের ব্রেন কাজ করছে না। পরে তার খালা আমাকে ফোন করে জানালেন, রাজিব আইসিইউতে আছে। সেখান থেকে সুস্থ হলে আমাকে জানাবেন। আমি তাকে দেখতে যাবো। এরপর তো আর দেখতে যাওয়া হয়নি। এরপর একদিন তার খালা আমাকে জানিয়েছিলেন— ইন্টারমিডিয়েট শেষ করে রাজিব বিভিন্ন জায়গায় চাকরির জন্য পরীক্ষা দিয়েছে। যদি চাকরি হয় তাহলে পড়াশোনার পাশাপাশি চাকরি করে ভাইদের ভরণ-পোষণ চালাবে। কিন্তু তাতো আর হলো না। তবে এখনও তার ঠিকানায় ইন্টারভিউয়ের জন্য চিঠি আসে। একথা বলে রাজিবের খালা তখন কান্নায় ভেঙে পড়েন।’ এরপর আদালত রাজিব হাসানের দুই ভাইকে এককোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ দেন। আদালতের আদেশ অনুসারে, বিআরটিসি ও স্বজন পরিবহনকে একমাসের মধ্যে ক্ষতিপূরণের অর্ধেক টাকা রাজিবের দুই ভাইকে পরিশোধ করে আদালতকে জানাতে বলা হয়। পাশাপাশি আগামী ২৫ জুন মামলার পরবর্তী আদেশের দিন নির্ধারণ করা হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.