ব্রেকিং:
Home » খেলা » টি-টোয়েন্টি যুদ্ধে নামছে বাংলাদেশ, সাকিবের কথায় আশার আলো

টি-টোয়েন্টি যুদ্ধে নামছে বাংলাদেশ, সাকিবের কথায় আশার আলো

স্পোর্টস ডেস্ক: ৩ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামছে বাংলাদেশ দল। এই ম্যাচের আগে সাকিব আল হাসানের কথায় আশার আলো।

ম্যাচের আগে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে আসেন সাকিব আল হাসান। নিজেদের সামর্থ্যের ওপর থেকে বিশ্বাস হারাননি সাকিব। কিন্তু এবারই সফরে ভালো করার সবচেয়ে ভালো সুযোগটা নাকি এসেছিল বাংলাদেশের জন্য। আবহাওয়া, উইকেটের চরিত্র—সবকিছুই ছিল বাংলাদেশের ভালো ফলের সহায়ক।

কিন্তু সে সুযোগটা বাংলাদেশ হেলায় হারিয়েছে বলেই বিশ্বাস দলের সহ–অধিনায়কের। সুযোগ হাতছাড়া করার ব্যাপারটিই তাঁকে সবচেয়ে বেশি পীড়িত করছে, ‘আমাদের জন্য এবার খুব বড় সুযোগ ছিল। উইকেটগুলো খুব ভালো ছিল। বড় সুযোগ হারিয়েছি আমরা।’

ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর টি-টোয়েন্টি সিরিজ নিয়ে খুব বড় প্রত্যাশার সুযোগ সীমিত হয়ে পড়েছে। তবে সাকিবের বিশ্বাস, ভালো করার সামর্থ্য বাংলাদেশ দলের প্রত্যেক খেলোয়াড়েরই আছে, ‘ওয়ানডে সিরিজের হতাশার মধ্যেও আমাদের ইতিবাচক দিকটা নিতে হবে। আমরা জানি আমাদের জেতার ক্ষমতা আছে। এই বিশ্বাস আমাদের অনেক সাহায্যই করবে।’

ওয়ানডে

সিরিজে সিনিয়র খেলোয়াড় হিসেবে সাকিবের ভূমিকা নিয়ে একটু প্রশ্ন উঠেছে। পাশাপাশি প্রশ্ন উঠেছে তাঁর পারফরম্যান্স নিয়েও। সাকিব কেন ওয়ানডে ম্যাচগুলোয় আরও একটু দায়িত্ব নিয়ে খেললেন না—এমন প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে অনেক ক্রিকেটপ্রেমীর মনেই।

সাকিব অবশ্য ব্যাপারটাকে এভাবে দেখেন না। তাঁর মতে, দলের ১১ জন খেলোয়াড়ের সবারই দায়িত্ব আছে, ‘যদি এভাবে ভাবা হয় যে সিনিয়ররাই সব করবে, তাহলে তো আপনাকে পাঁচটা খেলোয়াড় নিয়ে খেলতে হবে। খেলোয়াড় তো ১১ জন। ছয়জন জুনিয়র খেলোয়াড় যখন খেলবে, তখন তাদেরও কাজ আছে।’

জুনিয়র কিংবা নতুন খেলোয়াড়দের প্রতি সাকিবের বিশ্বাস আছে, ‘আমার কাছে সিনিয়র-জুনিয়র ব্যাপারটা খুব সঠিক মনে হয় না। সবারই দায়িত্ব আছে। কেউ নতুন আসছে দেখে যে ভালো করতে পারবে না—এমনটা আমরা বিশ্বাস করি না। নতুনদের ভালো কিছু করার ক্ষমতা আছে বলেই সে দলে এসেছে।’

ওয়ানডে সিরিজের দুই ম্যাচে মুশফিকুর রহিমের অনুপস্থিতি বেশ ভালোভাবেই টের পেয়েছে বাংলাদেশ। ‘সিনিয়র-জুনিয়র’ পার্থক্য নিয়ে মাথা না ঘামালেও সাকিব অবশ্য মনে করেন, মুশফিক এখনো দলে বিকল্পহীনই, ‘মুশফিক ভাই ১০ বছর ধরে বাংলাদেশ দলে খেলছে।

দলে তার আলাদা একটা জায়গা হয়ে গেছে। তার প্রতি দলের প্রতিটি সদস্যের আলাদা একটা বিশ্বাসও আছে। স্বাভাবিকভাবেই নতুন যত ভালো খেলোয়াড়ই আসুক, সে বিশ্বাসটা আদায় করে নেওয়া তার জন্য কঠিনই। তবে আমি বিশ্বাস করি, দলে যে-ই আসুক, নিজেরা নিজেদের কাজটা ঠিকমতো করতে পারলে আমরা ম্যাচ জিততে পারি।’

নিজেদের সামর্থ্যের ওপর বিশ্বাস আছে বলেই টি-টোয়েন্টি সিরিজে ঘুরে দাঁড়ানোর লক্ষ্যই সাকিবের। মাঠগুলো ছোট হওয়ায় প্রতিটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে অনেক রান হবে বলেই বিশ্বাস তাঁর। কিন্তু ওয়ানডে তিনটিতে বাজে ব্যাটিং প্রদর্শনীর পর টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ানো কি কঠিন হবে বাংলাদেশের জন্য?

সাকিব অবশ্য বিশ্বাস রাখছেন নিজেদের শক্তি ও সামর্থ্যে, ‘আমাদের আসলে ব্যাটিংয়ে খুব ফায়ার পাওয়ারের দরকার নেই। দরকার সুযোগ মতো বড় ইনিংস খেলা। নিউজিল্যান্ডের মাঠ ছোট, আমাদের যে শক্তি আছে, তা দিয়ে খুব সহজেই বাউন্ডারি মারা যাবে।’

প্রসঙ্গত, আগামীকাল থেকে শুরু হতে যাওয়া টি-টোয়েন্টি ম্যাচের আগে সাকিবের এমন কথায় আশার আলোই দেখছে ভক্তরা।

 

Facebook Comments
(Visited 1 times, 1 visits today)

মন্তব্য

আপনার ইমেইল গোপন থাকবে - আপনার নাম এবং ইমেইল দিয়ে মন্তব্য করুন, মন্তব্যের জন্য ওয়েবসাইট আবশ্যক নয়

*

Open

Close