Home » খেলা » টি-টোয়েন্টি একাদশে টিকে থাকার অন্যরকম লড়াইয়ে দুই ‘মমিসিঙ্গা’ টাইগার

টি-টোয়েন্টি একাদশে টিকে থাকার অন্যরকম লড়াইয়ে দুই ‘মমিসিঙ্গা’ টাইগার

স্পোর্টস ডেস্ক: আগামীকাল মঙ্গলবার কিউদের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টি খেলবে বাংলাদেশ দল। এই দলের একাদশ কেমন হবে এ নিয়ে চিন্তায় কোচ ও মাশরাফি। টি-টোয়েন্টিতে ভালো দল গঠন করে কিউদের মোকাবেলা করতে চায় বাংলাদেশ।

তবে একাদশে সুযোগ পাওয়া নিয়ে মধুর লড়াইয়ে দুই টাইগার ক্রিকেটার। ময়মনসিংহের স্থানীয় ভাষায় ময়মনসিংহ বাসীদের ‘মমিসিঙ্গা’ বলা হয়। বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলে ময়মনসিংহের সবচেয়ে বড় তারকাটি হলেন মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদ।

দলের নির্ভরতার প্রতীক এই ক্রিকেটার ছাড়াও আরও দুই ক্রিকেটার আছেন। তারা হলেন শুভাগত হোম এবং তরুণ তুর্কী মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি স্কোডায়ে আছেন দুজনেই। কিন্তু একাদশে স্থান করে নেবেন একজন।

শুভাগত হোম জাতীয় দলের হয়ে প্রথম কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছিলেন ২০১১ সালের আগস্টে। বিখ্যাত হারারে স্পোর্টস


গ্রাউন্ডে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে অভিষেক ম্যাচে ৩২ রান করে দুর্ভাগ্যজনক রানআউটের শিকার হয়েছিলেন। এরপর ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটেই তার অভিষেক হয় কিন্তু স্থায়ী স্থান করে নিতে পারছিলেন না। বারবার ব্যর্থ হওয়ার পরও বারবার তাকে দলে সুযোগ দেওয়া হয়েছে। এ নিয়ে রয়েছে প্রশ্নও।

অন্যদিকে গত বছরের জানুয়ারিতে খুলনায় সেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই টি-টোয়েন্টি ম্যাচের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় মোসাদ্দেকের। কিন্তু এরপর তাকে আর টি-টোয়েন্টি একাদশে দেখা যায়নি। সেপ্টেম্বরে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে অভিষেক হওয়ার পর তিনি মোটামুটি জাতীয় ওয়ানডে দলের নিয়মিত সদস্য হয়ে গেছেন প্রায়। স্বল্পদৈর্ঘ্যের ক্যারিয়ারে ৮ ওয়ানডে খেলে রান করেছেন ১৮০ আর উইকেট নিয়েছেন ৬টি।

দুজনের মধ্যে আরও মিল রয়েছে। দুজনেই ডানহাতি অফস্পিন অলরাউন্ডার। চন্দ্রিকা হাতুরুসিংহের ভাষায় দলে স্থিতিশীলতা ধরে রাখতেই অফস্পিন অলরাউন্ডার স্কোয়াডে রাখা হয়। মোসাদ্দেক তেমন নজরকাড়া কোনো পারফর্মেন্স না করলেও ধারাবাহিক। বিপিএলেও ভালো করেছেন। অন্যদিকে শুভাগতও গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দলে সুযোগ পাওয়ার পর থেকে নজরকাড়া কোনো পারফর্মেন্স দেখাতে পারেননি। ব্যর্থ হয়েছেন বিপিএলেও।

শুভাগতকে নিয়ে কোচের বক্তব্য, “যদি ওর শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচের কথা চিন্তা করেন, সেটি ছিল গত বিশ্বকাপে। দল নির্বাচনে আমাদের ধারাবাহিক হতে হবে। আমি দলে স্থিতিশীলতা আনতে চাই। সে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলেছে এবং শেষ দুই ম্যাচে ভালো বোলিং করেছে। ”

শেষে কোচ হাতুরুসিংহেই বললেন, একাদশে জায়গা পাবেন যোকোনো একজন। তাই এই দুজনের মধ্যে অনুশীলনে নিজেদের সেরাটা দেখাতে হবে। দেখা যাক, দুই ‘মমিসিঙ্গা’র মাঝে কে জায়গা করে নিতে পারেন।

Facebook Comments
(Visited 1 times, 1 visits today)

মন্তব্য

আপনার ইমেইল গোপন থাকবে - আপনার নাম এবং ইমেইল দিয়ে মন্তব্য করুন, মন্তব্যের জন্য ওয়েবসাইট আবশ্যক নয়

*

Open

Close