Home » খেলা » ১৭টি চার ও ৬টি ছক্কার সাহায্যে ১৮৪ রান করে ম্যাচসেরা এনামুল হক

১৭টি চার ও ৬টি ছক্কার সাহায্যে ১৮৪ রান করে ম্যাচসেরা এনামুল হক

স্পোর্টস ডেস্ক: টানা দ্বিতীয়বারের মত খুলনা বিভাগের ঘরে উঠল জাতীয় ক্রিকেট লিগের শিরোপা। ঢাকা মেট্রোকে ৩৯৮ রানে হারিয়ে একদিন আগেই শিরোপা উল্লাসে মেতে উঠল খুলনা বিভাগ।

খুলনা চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় ঢাকা বিভাগ নিশ্চিতভাবে রানারআপ হচ্ছে। তবে এ ম্যাচে নিজের দুই ইনিংস মিলেই ১৭টি চার এবং ৬টি ছক্কার সাহায্যে ১৮৪ রান করে বোলার আল আমিনের সঙ্গে যৌথভাবে ম্যাচসেরা পুরস্কার জিতেছেন এনামুল হক বিজয়।

আব্দুর রাজ্জাকের নেতৃত্বাধীন দলটি এবারের মৌসুমের শেষ রাউন্ডে ঢাকা মেট্রোকে তিন দিনেই ৩৯৮ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে টানা দ্বিতীয় শিরোপা জিতেছে। ফতুল্লায় ৫০৯ রানের বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১১০ রানেই অলআউট হয়ে যায় ঢাকা মেট্রো। ৪১ রানে ৬ উইকেট নিয়ে ঢাকা মেট্রোর ইনিংস গুঁড়িয়ে দেন জাতীয় দলের পেসার আল-আমিন


হোসেন।

এক দিন বাকি থাকতেই তাই শিরোপা নিশ্চিত হয়ে গেছে খুলনার। ছয় রাউন্ড শেষে খুলনার পয়েন্ট ৫৮। ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে থাকা ঢাকা বিভাগ শেষ রাউন্ডে বরিশালের বিপক্ষে বোনাসসহ জিতলেও তাদের পয়েন্ট হবে ৫৫। কারণ বোনাসসহ জিতলে একটি দলের সর্বোচ্চ ১৮ পয়েন্ট পাওয়ার সুযোগ থাকে।

ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার বড় লক্ষ্য তাড়ায় খুলনার বোলারদের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি ঢাকা মেট্রোর ব্যাটসম্যানরা। ৫৭ রানেই ৫ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে তারা। সেই ধাক্কা আর সামলে উঠতে পারেনি ঢাকা মেট্রো। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে ১১০ রানেই গুটিয়ে যায় তাদের ইনিংস।

সর্বোচ্চ ২৯ রান আসে অধিনায়ক মার্শাল আইয়ুবের ব্যাট থেকে। ১৪ ওভারে ৪১ রান দিয়ে ৬ উইকেট নেন খুলনার পেসার আল-আমিন। ৪২ রানে ৩ উইকেট নেন স্পিনার রাজ্জাক। অপর উইকেটটি নেন আশিকুজ্জামান। এর আগে ৩ উইকেটে ২৭২ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করেছিল খুলনা।

৭৩ রান নিয়ে দিন শুরু করা তুষার ইমরান তুলে নেন লিগে টানা তৃতীয় সেঞ্চুরি। আগের দিনে সেঞ্চুরি করেছিলেন এনামুল হক বিজয়। তুষারের ১৩৮ ও বিজয়ের ১২২ রানের সুবাদে ৫ উইকেটে ৪২৩ রানে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে খুলনা। তাতে ঢাকা মেট্রোর সামনে দাঁড়ায় ৫০৯ রানের পাহাড়সম লক্ষ্য। সেই রান-পাহাড়েই চাপা পড়ল ঢাকা মেট্রো!

নিজের প্রথম ইনিংসে ১৩৬ বল খেলে ৫টি চার এবং একটি ছক্কায় ৬২ রান করেন বিজয়। এরপরে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে এসে ১৫৩টি বলে ১২টি চার এবং ৫টি ছক্কার সাহায্যে ১২২ রানের একটি অসাধারণ ইনিংস খেলেন জাতীয় দলের উপেক্ষিত এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান।

 

Facebook Comments
(Visited 1 times, 1 visits today)

মন্তব্য

আপনার ইমেইল গোপন থাকবে - আপনার নাম এবং ইমেইল দিয়ে মন্তব্য করুন, মন্তব্যের জন্য ওয়েবসাইট আবশ্যক নয়

*

Open

Close