Home » খেলা » সৌম্য যে কারণে দুই বাবা চেরাগ আলী ও আলী বাবার প্রদীপ

সৌম্য যে কারণে দুই বাবা চেরাগ আলী ও আলী বাবার প্রদীপ

সৌম্যকে নিয়ে আপনি হতাশ, আমি হতাশ, বাংলাদেশ হতাশ, ম্যানেজমেন্ট হতাশ এমনকি সে নিজেও হতাশ। তবুও কেন সৌম্যকে সুযোগ দেয়া হচ্ছে? চলুন সেটা খুঁজে দেখা যাক। আজকে আমরা কোচ, অধিনায়ক, ম্যানেজমেন্ট এর চোখে বিচার করবো, দর্শকের চোখে না। প্রথম কথা, সৌম্য একজন টিম ম্যান। দলের সাথে মিশে যেতে পারে। সে কখনো নিজের জন্য খেলে না। সে এমন একজন ব্যাটসম্যান যেই লেভেলের ব্যাটসম্যান দেশে দ্বিতীয় কেউ নেই। সে একজন ম্যাচ উইনার, সে যেসব ম্যাচে রান করেছে তার বেশিরভাগ বাংলাদেশ জিতেছে। সৌম্য অত্যন্ত উচ্চমানের একজন ব্যাটসম্যান। সরাসরি বলি স্টিভ স্মিথ, ওয়ার্নার, রুট, ডুপ্লেসি এই লেভেলের একজন ক্লাসিক প্লেয়ার স্টাইল বিবেচনায়। তার শট খেলার এবিলিটি সেই পর্যায়ের। আলতো ছোঁয়ায় সীমানা পার করার ক্ষমতা আছে তার। সৌম্য টায়ার্ড হয়না, সেট হলে লম্বা ইনিংস খেলার একটা তাগিদ থাকে। তার শুরু আর শেষের ব্যাটিং একই রকম। বেশিরভাগ প্লেয়ার ফিফটি পার করার পর টায়ার্ড হয়ে ভুল শট খেলে যেমন তামিম, সাকিব এরা। পাকিস্তানের সাথে সৌম্য সরকারের ১২৭* বা সা.আফ্রিকার সাথে ৯০ রানের, ৮৮ রানের ইনিংস গুলা দেখেন। প্রতিপক্ষের ভেতর একটা ঠান্ডা আতংক ছড়ায় দিতে পারে। বোলারদের মানসিক ভাবে ডাউন করে দিতে পারে। কারন সে ফর্মে থাকলে ভুল শট কমই খেলে। আমাদের আসলে পর্যাপ্ত ব্যাক আপ নাই। আপনি পারলে আমাকে একজন ব্যাটসম্যান দেখান যে সৌম্য সরকারের লেভেলের।

শেষ দুই ওয়ানডে ম্যাচে ও ছিলোনা তাতে কি দলের আহামরি চেঞ্জ হয়েছে? এবার আসল কথা বলি, সৌম্য সরকারের বয়স কত? ২৪ বছর। বাংলাদেশ অন্তত আরো ১১ বছর সার্ভিস চায় তার থেকে। এখন আপনি শাহরিয়ার নাফীসকে দলে আনতে পারবেন, দলে আনলে অন্তত তাকে কিছুদিন সুযোগ দিতেই হবে। কিন্তু নাফীস আপনাকে কয়দিন সার্ভিস দিবে? আচ্ছা সমস্যা সেটাও না, সমস্যা হলো এই যে আপনি সৌম্যকে দলের বাহিরে পাঠাবেন তাতে কিন্তু অনেক সমস্যা আছে। এখন সে জাতীয় দলের একটা সার্কেলে আছে, পরিবেশে আছে কিন্তু যখন ঘরোয়া ক্রিকেটের লেভেলে যাবে সে কিন্তু অনেক সুবিধার বাইরে চলে যাবে। জিম থেকে নেট কোনটারই অবস্থা ভালো না। আর একটু খেয়াল করে দেখেন যারা একবার দল থেকে বের হয়ে যাচ্ছে তাদের ফেরার রাস্তা প্রায় বন্ধ হয়ে যায়। ওর বদলে যে আসবে সে হয়তো রান করবে, রান ইমরুল করে, রান নাফীস বা বিজয় হলেও করবে কিন্তু কেউই কিন্তু সৌম্য সরকারের লেভেলের না। আরো অনেক সেঞ্চুরী করলেও ইমরুল বা বিজয় কোনদিন সুপার স্টার হবেনা, ধারাভাষ্যকর থেকে দর্শক, মিডিয়া কারোরই মনের খোরাক, চোখ জুড়ানো ব্যাটসম্যান তারা হবেনা। দৃষ্টিনন্দন ব্যাটসম্যান বিশ্বেই খুব কম আছে। সুতরাং সৌম্য যদি একবার বাইরে চলে যায় এবং অন্যকেউ সেখানে সেট হয়ে যায় তাহলে বাংলাদেশ দীর্ঘমেয়াদে একজন সম্পদ হারাবে। হয়তো সে গ্রেট প্লেয়ারদের কাতারে যাবার সম্ভাবনা রাখে। হাথুরুসিংহে অনেক উচ্চ মানের কোচ, কিছু না কিছু না দেখলে এতো সুযোগ দিতো না। মাশরাফি, সাকিব, মুশফিক সবাই কিন্তু তারে ব্যাক আপ দেয়। সবাই চায় সে ফিরে আসুক। মনে রাখবেন ফর্মের তুঙ্গে থাকা সৌম্য যদি ৮০ বল খেলে তাহলে তার রান হবে ১০৫ বা ১১০ আর প্রতিপক্ষের বোলিং হবে ছিন্নভিন্ন। আবার ফর্মে থাকা ইমরুল বা বিজয় ৮০ বলে করবে ৬০ বা ৬৫। পার্থক্য এখানেই। আমার মনে হয় সৌম্যকে হারায় ফেলার ভয়েই ওকে দলে রাখা হচ্ছে। একবার বাইরে গেলে যদি হারায় যায় সেই ভয়। আর সৌম্যকে কেউই হারাতে চায়না। কারন তার সেরাটা দিলে দলের কি লাভ হয় সেটা ম্যানেজমেন্ট দেখেছে।

SK .Minal

Facebook Comments
(Visited 1 times, 1 visits today)

মন্তব্য

আপনার ইমেইল গোপন থাকবে - আপনার নাম এবং ইমেইল দিয়ে মন্তব্য করুন, মন্তব্যের জন্য ওয়েবসাইট আবশ্যক নয়

*

Open

Close