এইমুহূর্তে:পরাজয় না মেনে নিয়ে হঠাৎ ট্রাম্প যে সিদ্ধান্ত নিলো!

0

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের পরাজয় হয়েছে। জো বাইডেনের কাছে হার মেনে নিতে পারছেন না ডোনাল্ড ট্রাম্প। ফল হাতে চলে এলেও তিনি বলছেন– নির্বাচন শেষ হতে এখনও অনেক বাকি। এদিকে নির্বাচন চ্যালেঞ্জ করে আইনি লড়াইয়ে যাচ্ছে ট্রাম্পশিবির।

ফিলাডেলফিয়াতে এক সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্পের আইনজীবী রুডি জুলিয়ানি বলেন, নির্বাচনের ফলের বিরুদ্ধে তারা সোমবার থেকে আইনি লড়াই শুরু করবেন। ভোটে অনিয়মের অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, ফিলাডেলফিয়াতে অনেক মৃত বাসিন্দা এবার ভোট দিয়েছেন। এর মধ্যে অভিনেতা উইল স্মিথের মৃত বাবার নামেও ভোট দেয়া হয়েছে।

জুলিয়ানির অভিযোগ, তারা যে পরিমাণ ভোটে এগিয়েছিলেন তা দুর্নীতি ছাড়া অদৃশ্য হয়ে যেতে পারে না। তবে এ কথার পক্ষে কোনো প্রমাণ দাঁড় করাতে পারেননি রিপাবলিকানরা। জুলিয়ানি বলেন, তার পাশে যারা দাঁড়ানো, তাদের মধ্যে ৫০ থেকে ৬০ জন নির্বাচন পর্যবেক্ষক আছেন এবং তাদের নিয়মিতভাবে ডাকযোগে পাঠানো ভোটের কোনো অংশ পর্যবেক্ষণ করার অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে।

তবে ফেডারেল বিচারক ইতিমধ্যে বলেছেন– ট্রাম্প প্রচার টিমের সদস্যরা ফিলাডেলফিয়াতে এ মুহূর্তে ভোট গণনার কাজ পর্যবেক্ষণ করছেন। নির্বাচনের রাত থেকেই ডোনাল্ড ট্রাম্প ভোট গণনার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করেছেন এবং বলেছেন তিনিই নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছেন। তবে নির্বাচনী কর্মকর্তারা বারবার বলছেন যে,

‘কোনোরকম ভোট জালিয়াতির কোনো তথ্যপ্রমাণ নেই।’এদিকে বাইডেনের বিজয়ের খবর পাওয়ার পর ওয়াশিংটন ডিসির বিএলএম প্লাজায় ডেমোক্র্যাটদের উচ্ছ্বাস দেখা গেছে। উল্লিসিত জনতা বলছেন, ‘ঈশ্বরকে ধন্যবাদ, ডোনাল্ড ট্রাম্প বিদায় নিয়েছেন।’সিএনএনের খবরে বলা হয়েছে, জো বাইডেনের বিজয়ের খবর প্রকাশের পর পরই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এক বিবৃতিতে বলেন,

‘বাইডেন মিথ্যে জয়ের ভাব ধরার জন্য তাড়াহুড়ো করছেন’ এবং ‘ভোটযুদ্ধ এখনও শেষ হওয়ার অনেক বাকি।’বিবৃতিতে রিপাবলিকান প্রার্থী ট্রাম্প তার পরাজয়ের জন্য সংবাদমাধ্যমের ভূমিকার কড়া সমালোচনা করেন। বলেন, আমরা সবাই জানি–জো বাডডইডেন কেন জয়ী হওয়ার মিথ্যা দাবি করার জন্য তাড়াহুড়ো করছেন।

আর কেন তার মিত্র সংবাদমাধ্যমগুলো তাকে সাহায্য করার এত চেষ্টা করছে। তারা চায় না যে সত্য প্রকাশিত হোক। ওই বিবৃতিতে ট্রাম্প বলেন, নির্বাচনের আইন পুরোপুরি মানা হয়েছে এবং ন্যায্য বিজয়ীই ক্ষমতায় বসছেন—এ বিষয়টি নিশ্চিতের জন্য তার প্রচার শিবির আগামী সোমবার নাগাদ আদালতের দ্বারস্থ হবে।

এ সম্পর্কিত প্রতিবেদনে নিউইয়র্ক পোস্ট বলেছে, ডোনাল্ড ট্রাম্প নির্বাচনের ফল অস্বীকার করেছে। গত মঙ্গলবার ভোটের পর থেকে ট্রাম্প প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে ভোট কারচুপির একের পর এক অভিযোগ করে এসেছেন, যার কোনো প্রমাণ তিনি দেখাতে পারেননি। ভোট গণনা চলার সময়েই ব্যাটলগ্রাউন্ড অঙ্গরাজ্যগুলোর বেশ কয়েকটিতে ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রচার শিবির থেকে মামলা করা হয়েছিল।

কিন্তু এ মামলাগুলো আদালতে টেকেনি। শুরু থেকেই নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার নানা চেষ্টা করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার ঘনিষ্ঠরা। যেসব অঙ্গরাজ্যে তিনি এগিয়ে ছিলেন, সেসবে তিনি গণনা বন্ধ এবং যেসব অঙ্গরাজ্যে তিনি পিছিয়ে ছিলেন, সেসবে তিনি জালিয়াতির অভিযোগ তোলেন।

Leave A Reply