কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) পাওয়ার পর সংবাদ সম্মেলনে যা বললেন মেজর(অব.) হাফিজ

0

কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) পাওয়া বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আজ শনিবার সংবাদ সম্মেলন করছেন। তিনি সংবাদ সম্মেলনে বলেন, জিয়াউর রহমান বেহেস্ত থাকলে উনিও লজ্জা পাবেন যে মেজর হাফিজকে শোকজ করেছে। বনানীতে নিজ বাসভবনে তিনি এই সংবাদ সম্মেলনে তিনি ওই অভিযোগ করেন। দায়িত্বপালনে অপারগতা ও শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে বিএনপির কারণ দর্শানোর নোটিশের জবাবে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

হাফিজ উদ্দিন বলেন, মানববন্ধনে যেতে পারি না বলে আমাকে দল থেকে শোকজ করেছে। মুক্তিযোদ্ধা সম্পর্কিত সভাগুলোতে আমাকে আগে ডাকা হতো, গত দেড়-দুই বছর ধরে আমাকে এসব অনুষ্ঠানে ডাকা হয় না। শোকজের বিষয়ে তিনি বলেন, জনগণ মনে করেন যে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার কথা সেটি বিএনপি বর্জন করেছে। যে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার কথা নয় সেটিতে অংশগ্রহণ করেছে। ২০১৮ সালের মধ্য রাতের নির্বাচন করা ও সংসদে যোগ দেয়া উচিত হয় নাই এমনটি জনগণ মনে করে।

তিনি বলেন, বিএনপি আর আওয়ামী লীগের মতো বড় দুটি দলের মাঝে কোনও গণতন্ত্র চর্চা নেই। এই যে বক্তব্যগুলো এখানে দলীয় নেতৃত্ব বিষয়ে কোনও ধরণের অপমানমূলক বক্তব্য আমি কখনো রাখি নাই। এগুলো আত্ম সমালোচনা মূলক বক্তব্য। প্রিন্ট ও ইলেকট্রিক মিডিয়াতে দলীয় স্বার্থ বিরোধী কোনও বক্তব্য দেই নাই। বর্তমান মিডিয়া সরকারের নিয়ন্ত্রণাধীন। কিছু বললে এখানে কাট ছাট করে সেটি প্রচার করে।

আমি একজন ছোট রাজনীতি কর্মী নিজেকে মহাসচিব ঘোষণা করছি এটি হাস্যকর। বেগম জিয়া আমার নেত্রী আমি সবসময় এটি বিশ্বাস করি, করে যাবো। আমার বিরুদ্ধে কোনও দুর্নীতির অভিযোগ নাই। ঢাকা শহরে আমার কোনও বাড়ি নাই। আমি দলে হয়ে কাজ করছি না, এটি কি করে বলে তারা। এলাকায় সবসময় বিএনপির জন্য রাজনীতি করি দলের হয়ে। আমি ব্যক্তি স্বার্থে রাজনীতি করি না।

এলাকার নেতাদের মামলার খরচ থেকে শুরু করে সকল খরচ আমি বহন করছি। আমি এলাকার জন্য কাজ করি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান করেছি। আমি ২৯ বছর ধরে এই দল করি। আমার মূল বক্তব্যে আমি কখনো বিএনপির বিরুদ্ধে কথা বলি নাই। এমন কি শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে ও কখনো খারাপ মন্তব্য করি না কারণ এসব আমার আচরণে নেই।

আমি মুক্তিযোদ্ধা জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করেছি। মেজর জিয়ার রহমানের নেতৃত্বে আমরা সিলেট দখল করেছি। এ দলে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান নেই। ১৯৭৭ সালে গণ ভবনে আমাকে ডেকে জিয়া বলেছে তুমি নির্বাচন করো তখন আমি বলেছি আমি এখন রাজনীতি করবো না।

Leave A Reply